আত্মঘাতী সংঘাত যেন আর না হয়: বিজিবিকে প্রধানমন্ত্রী

বিদ্রোহের মতো আত্মঘাতী সংঘাতের পুনরাবৃত্তি এড়াতে সীমান্ত রক্ষা বাহিনীকে সজাগ ও সতর্ক থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার পিলখানায় বাহিনীর সদর দপ্তরে বিজিবি দিবসের অনুষ্ঠানে তিনি এই নির্দেশ দেন।

২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে এই পিলখানায় বিডিআর বাহিনীতে বিদ্রোহের সূত্রপাত ঘটে। ওই বিদ্রোহে ৫৭ জন সেনা কর্মকর্তাসহ ৭২ জন প্রাণ হারান।

রক্তাক্ত ওই বিদ্রোহের পর দায়ীদের শাস্তি দেওয়ার পাশাপাশি খোলনলচে বদলে দেওয়া হয় সীমান্ত রক্ষা বাহিনীকে।

বাংলাদেশ রাইফেলস (বিডিআর) বাহিনীর নাম বদলে হয় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। পোশাকও পরিবর্তিত হয়।

বিদ্রোহের ওই ঘটনাটিকে ইতিহাসের একটি ‘কালো অধ্যায়’ আখ্যায়িত করে শেখ হাসিনা বলেন, “সে সময় সরকার গঠনের পরপরই বিদ্রোহের একটি রক্তাক্ত অধ্যায় আমাদের মোকাবেলা করতে হয়েছিল।”

সবার সহযোগিতায় এই বাহিনীতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “সতর্ক থাকবেন, ভবিষ্যতে কখনও এমন আত্মঘাতী সংঘাত যেন সৃষ্টি না হয়।”

Developed by: