প্রস্তুতি সম্পন্ন, আগামীকাল লন্ডনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বাঙালির প্রাণের মেলা

পূর্ব লন্ডনের ব্রাডি আট সেন্টারে এখন চলছে হাতুড়ি-পেরেকের ঠোকাঠুকি, নির্মাণ এবং সাজগোজ। এই কর্মযজ্ঞের উপলক্ষ একটিই – বইয়ের মেলা। আগামীকাল রবিবার শুরু হবে ব্রিটেন প্রবাসী বাঙালির প্রাণের এ মেলা; বাংলাদেশ বইমেলা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৯।

আগামীকাল (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে এগারোটায় মেলা উদ্বোধন করবেন আমাদের সংগঠনের (সম্মিলিত সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদ যুক্তরাজ্য) প্রধান উপদেষ্টা মহান একুশের অমর গানের রচয়িতা বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বর্ষকে সম্মান জানিয়ে এবারের বইমেলা, সাহিত্য সাংস্কৃতিক উৎসবটি আমরা বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এ বারের মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, এমপি। থাকছেন তিন সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধি দল। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন- যুক্তরাজ্যস্থ বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনীম, টাওয়ার হ্যামলেট্স কাউন্সিলের নির্বাহী মেয়র জন বিগস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাবিভাগের চেয়ারম্যান ভীষ্মদেব চৌধুরী, বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ড. শাহাদুজ্জামান, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, বাংলাদেশ প্রতিদিন-এর সম্পাদক নঈম নিজাম এবং লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এমদাদুল হক চৌধুরী সহ দেশ বিদেশের বিশিষ্ট লেখক, সাংবাদিক এবং কমিউনিটি সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশনা ও বিক্রেতা সমিতি, ঢাকা; বাংলাদেশ হাইকমিশন, লন্ডন এবং বিলেতের সকললেখক-পাঠক- সাংবাদিক- কবি- সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিকর্মী এবং কমিউনিটির বিভিন্ন স্তরের মানুষের সহযোগিতায় আয়োজিত মেলায় এ বছর অংশগ্রহণ করছে-বাংলা একাডেমি, আগামী প্রকাশনী, অন্যপ্রকাশ, ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ, আহমেদ পাবলিশিং হাউস, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স, অনিন্দ্য প্রকাশ, উৎস প্রকাশন, অনার্য পাবলিকেশন্স, সিলেট কালচারাল অ্যান্ড হেরিটেজ একাডেমি, পারিজাত প্রকাশনী, পুঁথিনিলয়, নালন্দা, শব্দশৈলী, বাসিয়া প্রকাশনী এবং পাণ্ডুলিপি প্রকাশনসহ বাংলাদেশের মোট ১৪টি প্রকাশনা সংস্থা। এছাড়াও রয়েছে বিলাতের বঙ্গবন্ধু বইমেলা, প্রবাস প্রকাশনী, সিলেট কালচারাল এন্ড হেরিটেজ একাডেমি, মেট্রোমেঘ, কবিতাস্বজন, স্পন্দনসহ বেশকিছু স্টল। থাকবে বাংলাদেশ হাইকমিশনের তত্ত্বাবধানে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’।

এবছর মেলাকে কেন্দ্র করে প্রবাসী অনেক লেখকের বই প্রকাশিত হয়েছে। আমার নিজেরও একটি বই (সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থান ও সৌধ) বেরিয়েছে ৯ম বাংলাদেশ বইমেলাকে উপলক্ষ করে।

দু’দিন ব্যাপী এই মেলা ও উৎসব চলবে প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। পাশাপাশি স্টুডিও থিয়েটারে প্রথমদিন থাকবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, আলোচনাসভা, পদকপ্রদান, স্বরচিত কবিতাপাঠ, আবৃত্তি এবং সব শেষে বিলেতের শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সঙ্গীতা। বিষয়: ‘বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকাশে সরকারের পরিকল্পনা’। মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ড. শেখ মুসলিমা মুন, ডেপুটি সেক্রেটারি, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।দ্বিতীয় সেমিনার শুরু হবে বিকেল ২:৩০। বিষয়: ‘অনাবাসী সাহিত্য’। মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিলেতবাসী কবি হামিদ মোহাম্মদ। তৃতীয় সেমিনার শুরু হবে বিকাল ৩.৩০। বিষয়: লেখক ও প্রকাশক সম্পর্ক।

দ্বিতীয় দিনের তৃতীয় পর্বে আরও রয়েছে লেখক, কবি ও শিল্পীদের নিয়ে কবিতাপাঠ, গল্পবলা এবং সঙ্গীতানুষ্ঠান।

গতবারের মত এবছরও একটি দুষ্টচক্র মেলা বানচালের অপচেষ্টা করেছে। নানা অপপ্রচার চালিয়েছে। গতবারও এই চক্র ব্যর্থ হয়েছে। এবারও তারা ব্যর্থ হচ্ছে। সচেতন সাংবাদিকমহল এবং সমাজের সচেতন মানুষেরা আমাদের সঙ্গে আছেন, সকলের সহযোগিতায় মেলা সফলভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

প্রিয় কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, লেখক ও সাংবাদিক এবং বন্ধু মহলে, বহু সংস্কৃতির লালনভূমি যুক্তরাজ্যের লন্ডন শহরে আমাদের এই বইমেলা ও উৎসবের মূল লক্ষ্য হচ্ছে—বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির চর্চা ও লালনের মাধ্যমে আমাদের ভবিষ্যৎ-প্রজন্মকে শিকড়ের সন্ধান দেয়ার পাশাপাশি বিশ্ববাঙালির মেলবন্ধন রচনা করা। আমাদের সাহিত্য ও সংস্কৃতির প্রচার ও প্রসারের জন্য কাজ করা। অতীতের মতো আপনাদের কাছে সকল প্রকার সাহায্য ও সহযোগিতা কামনা করছি।

৯ম বাংলাদেশ বইমেলা ও সাহিত্য সাংস্কৃতিক উৎসব সফল করার জন্য আমাদের সংগঠনের সভাপতি লেখক ও গবেষক ফারুক আহমদ, সাধারণ সম্পাদক কবি ইকবাল হোসেন বুলবুল এবং বইমেলা পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান ড. মুকিদ চৌধুরী সহ সংগঠনের কার্যকরী কমিটির সদস্যবৃন্দরা যার যার অবস্থান থেকে নিঃস্বার্থ ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ইনশাআল্লাহ গত ৮ বারের মত এবছরও আমরা সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারব।

প্রিয় কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, লেখক- সাংবাদিক এবং বন্ধু মহল, আগামীকাল বইমেলায় আপনাদের সবাইকে আমার অন্তরের অন্ত:স্থল থেকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। দেখা হবে, কথা হবে ব্রাডি আর্টস অ্যান্ড কমিউনিটি সেন্টারের মেলা প্রাঙ্গণে।

Please follow and like us:
error

Developed by: