বিশ্বনাথে মাকুন্দা সম্পাদক খালেদ মিয়া অবরুদ্ধ : থানায় জিডি

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:: মাসিক মাকুন্দার সম্পাদক কবি মো:খালেদ মিয়াকে (৫৫) অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। এছাড়া সন্ত্রাসীরা তাকে কিংবা তার পরিবারের যেকোন সদস্যের উপর যেকোন সময় হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমন করতে পারে বলেও অভিযোগ রয়েছে তার। এমনকি বর্তমানে চরম নিরাপ্তাহীনতায় তাকে ঘরবন্ধি অবস্থায় দিনকাটাতে হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন এ নিরীহ কবি।

অবশেষে প্রাণের ভয়ে নিরাপত্ত্বা চেয়ে শনিবার (২৫ জুলাই) বিশ্বনাথ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করেছেন, (জিডি নং ৯৩১/২০২০ইং)। নিরীহ কবি খালেদ মিয়া সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের সিংগেরকাছ নয়াগাঁও গ্রামের মরহুম সিদ্দেক আলীর ছেলে।

জিডি এন্ট্রি ও এলাকা সূত্রে জানাগেছে, গত ১৮ জুলাই খালেদ মিয়ার ভাগ্নে একই গ্রামের বাসিন্দা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন জুনেদ (২৮) উপজেলা যুবলীগ নেতা যুক্তরাজ্য প্রবাসী আজির মিয়ার একটি ঈদ শুভেচ্ছা ফেসবুকের পোস্ট করেন। আর ওই পোস্টটি দেখে ক্ষিপ্ত হন সৌদী আরবে বসবাসকারী একই গ্রামের ওয়ারিছ আলীর ছেলে শামসুল আলম ডালিম (২৮)। তিনি ওই পোস্টের বিরুদ্ধে ফেসবুকে গালিগালাজ করে পাল্টা একটি পোস্ট দেন। এনিয়ে গত ২৩ জুলাই বৃহস্পতিবার ডালিমের বাবা ওয়ারিছ আলী (৭০), ভাই সুমন আলী (২২), পাশের ঘরের আব্দুল মতলিব (৩৫) আরও ৩০/৪০জনকে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে খালেদ মিয়াকে মারধর করতে তার বাড়ি ঘেরাও করেন। এতে খালেদ মিয়া দরজা বন্ধ করে ওইদিন বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে গ্রামবাসীর সহযোগীতায় তিনি রক্ষা পান। এর পরদিন ২৪জুলাই শুক্রবার রাতে অজ্ঞাতনামা ৭/৮জন লোক তালা ভেঙ্গে তার বসত ঘরে প্রবেশর চেষ্টা করে।

এব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামিম মুসা বলেন, বিষয়টি তার নজরে রয়েছে। আগামি দু’একদিনের মধ্যে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Developed by: