ইঞ্জিনিয়ার এম.এ. হামিদ

31-17মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তরুণ প্রজন্মের এক গর্বিত উত্তরাধিকারীর নাম। ইংল্যান্ড প্রবাসী এম.এ হামিদ অক্লান্ত পরিশ্রম ও সাধনার ফলে স্থান করে নিয়েছেন সাউথঅ্যান্ড এয়ারপোর্ট প্রসপেক্ট এভিয়েশন সেন্টারে প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপক পদের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে নিজেকে।
লালাবাজার ইউনিয়নের আলীনগর গ্রামের বাসিন্দা এম.এ হামিদ ১৯৭৭ খ্রিস্টাব্দের ৮ জুন জন্মগ্রহণ করেন। পিতা (মরহুম) আব্দুন নূর মাস্টার ছিলেন একজন শিক্ষাবিদ। শিক্ষার প্রতি ছিল অসাধারণ দুর্বলতা। তাই মৃত্যুর আগ পর্যন্ত শিক্ষার প্রসারে কাজ করে গেছেন। তাঁর গর্ভধারিণী মাতা রাবেয়া খাতুন।
এম.এ হামিদ ইংল্যান্ডের ৫৪ হারকোট এভিনিউ সাউথঅ্যান্ড অন-সি-তে বসবাস করেন। তিনি সাসেক্স এর ব্রাইটন কলেজ অব টেকনোলজি থেকে ১৯৯৪ খ্রিস্টাব্দের জুন মাসে সিটি অ্যান্ড গিল্ডস ইন ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ ইঞঊঈ ভরৎংঃ পবৎঃরভরপধঃব রহ ঊহমরহববৎরহম লাভ করেন। সাসেক্স সোরহাম এয়ারপোর্টের নথব্রোক কলেজ  থেকে নভেম্বর ১১৯৭ খ্রিস্টাব্দে অবৎড়ঢ়ষধহব অ১ ্ ঢ়রংঃড়হ ঊহমরহব ঈঅঅ ‘অ্ঈ (খরপবহংবফ ঊহমরহববৎ) উরঢ়ষড়সধ রহ অরৎপৎধভঃ গধরহঃবহধহপব কোর্স সম্পন্ন করেন। লন্ডনের সিটি ইউনিভার্সিটি থেকে ২০০৩ খ্রিস্টাব্দের জুন মাসে ই ঊহম (যড়হ’ং) অরৎ ঞৎধহংঢ়ড়ৎঃ ঊহমরহববৎরহম কোর্স সম্পন্ন করেন। ফার্নব্ররো কলেজ অব টেকনোলজি হতে সেপ্টেম্বর ২০১০ থেকে ডিসেম্বর ২০১২ খ্রিস্টাব্দে চএ ঈবৎঃরভরপধঃব রহ ঊফঁপধঃরড়হ সার্টিফিকেট অর্জন করেন।  কেন্টের বিগিন হিল এয়ারপোর্টের ফলকন ফ্লাইয়িং সার্ভিস হতে ডিসেম্বর ১৯৯৭ থেকে জুলাই ১৯৯৮ খ্রিস্টাব্দে অরৎপৎধভঃ সধরহঃবহধহপব ঃবপযহরপরধহ কোর্স সম্পন্ন করেন।
সাসেক্স সোরহাম এয়ারপোর্টের কে.বি এভিয়েশন হতে আগস্ট ১৯৯৮ থেকে মে ২০০৩ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত গধরহঃবহধহপব ঊহমরহববৎ (রিঃয পড়সঢ়ধহু ধঢ়ঢ়ৎড়াধষ)
জুলাই ২০০৪ থেকে সেপ্টেম্বর ২০০৮ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত তিনি টিউটর ইন প্রথম এবং দ্বিতীয় বর্ষ এরোনটিকেল সাবজেক্টে সিটি ইউনিভার্সিটি লন্ডন থেকে এবং একজন এয়ারক্রাফট মেনটেনেন্স ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ২০০৮ খ্রিস্টাব্দের ডিসেম্বর থেকে ২০০৯ খ্রিস্টাব্দের ডিসেম্বর বাংলাদেশের এরোনেটিক্যাল কলেজে উচ্চতর শিক্ষা ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ঢাকায় সৌদিআরব এয়ারলাইন স্টেশনে ২০০৮ খ্রিস্টাব্দের অক্টোবর থেকে ২০১০ খ্রিস্টাব্দের জানুয়ারি পর্যন্ত লাইন মেনটেইনেন্স ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে পার্টটাইম কাজ করেন। তিনি হ্যামশায়ার শহরের ফার্মবরো কলেজ অব টেকনোলজিতে লেকচারার হিসেবে ২০১০ খ্রিস্টাব্দের এপ্রিল হতে ২০১২ খ্রিস্টাব্দের ডিসেম্বর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি সাউথঅ্যান্ড এয়ারপোর্ট প্রসপেক্ট এভিয়েশন সেন্টারে প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপক পদে নিয়োজিত আছেন।
ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত। তাঁর স্ত্রী নাজিয়া মান্নান। একমাত্র কন্যা মাইমুনা হামিদের জনক তিনি।

Developed by: