ইবোলা ভাইরাসের আক্রমণে ‘জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা

12-6ইবোলা ভাইরাসের আক্রমণের কারণে সিয়েরা লিওন সরকার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছে। দেমটির রাজপথ এখন প্রায় শূন্য। রাস্তায় মানুষ বা গাড়ির দেখা মেলা ভার।

সিয়েরা লিওনসহ তিনটি দেশে ইতোমধ্যে ১ হাজার ৭শ’র মতো মানুষ আক্রান্ত হয়েছে ইবোলা ভাইরাসে। এখন নাইজেরিয়াতেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এ ভাইরাস। আক্রান্তদের ৯০ ভাগেরই নিহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এরই মাঝে ৯শ’ ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে এ ভাইরাসের আক্রমণে সৃষ্ট জ্বরে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে ইতোমধ্যে। এই মহামারীকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর মহামারী’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে সংস্থাটি।

এর আগে ২০০২ এবং ২০০৩ সালের মাঝে কঙ্গোতে একবার ইবোলা ভাইরাসের আক্রমণ হয়। সেবারও আক্রান্তদের ৯০ ভাগই মৃত্যুমুখে পতিত হয় বলে জানান মেসাচুসেটস প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের জৈবপরিসংখ্যানবিদ মাইমুনা মজুমদার।

তিনি জানান, ১৯৭৬ সালের পর এপর্যন্ত ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নিহতের পরিমাণ শতকরা ৬০ থেকে ৬৫ ভাগ।

তবে বর্তমানে তা ৫৪ শতাংশ বলে জানান মাইমুনা। সাথে তিনি উল্লেখ করেন, এই হার অঞ্চল ভেদে ভিন্ন। গিনিতে মৃত্যুর হার ৭৩ শতাংশ, যেখানে লাইবেরিয়াতে ৫৫ শতাংশ, সিয়েরা লিওনে ৪১ শতাংশ এবং নাইজেরিয়াতে ১১ শতাংশ।

Developed by: